৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর |৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর |৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর |৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies: ২০২১ সালে ৯ম শ্রেণির ৫ম সপ্তাহে প্রকাশিত হয়েছে ইংরেজি, বিজ্ঞান, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট । সুপ্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা,  আমাদের ওয়েবসাইটে সবাইকে স্বাগতম। তোমরা যারা ৯ম শ্রেনীতে পড় তোমাদের সুবিধার জন্য আমরা ৫ম সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট এর নির্ধারিত কাজ এবং তার সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছি। এই পোস্ট অনুসরণ করে তোমরা ২০২১ সালের ৯ম শ্রেণি ৫ম সাপ্তাহে বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়ের সমাধান সুন্দরভাবে লিখতে পারবে।

এছাড়াও তোমরা আমাদের সাইটে ৯ম শ্রেনির সকল এ্যাসাইনমেন্ট এর প্রশ্ন ও উত্তর পাবে। পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে তোমার বন্ধু বা প্রিয়জনকে দেখার সুযোগ করে দিও।

আপনি যা যা পড়বেন

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর | ৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

৯ম শ্রেণি ৫ম সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এ্যাসাইনমেন্ট ২০২১

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর | ৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর |৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের ক্রমঃ এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ-২;  অধ্যায় ও অধ্যায়ের শিরােনামঃ তৃতীয় অধ্যায়: সৌরজগৎ ও ভূমণ্ডল;

পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত পাঠ নম্বর ও বিষয়বস্তুঃ পাঠ-৩.১ সৌরজগৎ-৫; পাঠ-৩.২ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানের সময় নির্ণয়-৪; পাঠ-৩.৩ পৃথিবীর গতি-৪; পাঠ- ৩.৪ জোয়ার-ভাটা-২;

বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় কর। বাংলাদেশের সাথে উল্লিখিত দেশসমূহের স্থানীয় সময় ও ঋতুগত পার্থক্যের কারণ ব্যাখ্যা কর।

১। সময়ের পারর্থক্যের ক্ষেত্রে দ্রাঘিমা রেখার ভূমিকা উল্লেখ করবে।

২। স্থানগুলোর স্থানীয় সময় নির্ণয় করবে।

৩। ঋতু পরিবর্তনের চিত্র অঙ্কন করবে।

৪। বার্ষিক গতির ফলাফল ও অবস্থানের ভিত্তিতে উল্লিখিত দেশগুলির ঋতুর পার্থক্য ব্যাখ্যা করবে।

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর |৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর এখান থেকে শুরু

১। সময়ের পারর্থক্যের ক্ষেত্রে দ্রাঘিমা রেখার ভূমিকা

গ্রিনিচ মানমন্দিরটি লন্ডনে অবস্থিত। গ্রিনিচের দ্রাঘিমাকে 0° ধরা হয়। গ্রিনিচের মানের সময়কে GMT (Greenwich Mean Time) হিসেবে ধরা হয়। এর মাধ্যমে মূল মধ্যরেখার সাপেক্ষে অন্যান্য স্থান, অঞ্চল কিংবা দেশের বিভিন্ন সময়ের হিসাব-নিকাশ করা হয়। বর্তমানে প্রত্যেক দেশ এই গ্রিনিচের সাপেক্ষে সময় নির্ণয় করে থাকে। গ্রিনিচের সাপেক্ষে নির্ণয় করা এই সময়কে প্রমাণ সময় বলে।

যদি কোনো দেশ অনেক বড় হয় (যেমন ইন্ডিয়া, রাশিয়া), তবে সেই দেশে কয়েকটা প্রমাণ সময় থাকে। মনে রাখতে হবে, প্রতি ১° দ্রাঘিমার পার্থক্যের জন্য ৪ মিনিটের সময়ের পার্থক্য হয়। কোনো স্থানের দ্রাঘিমা ক্রোনোমিটারের সাহায্যে সূক্ষ্ণভাবে নির্ণয় করা যায়। তাই সমুদ্রে থাকা নাবিকেরা ক্রোনোমিটারের সাহায্যে দ্রাঘিমা বের করে নিজেদের অবস্থান নির্ণয় করতে পারেন। তাই সময়ের পারর্থক্যের ক্ষেত্রে দ্রাঘিমা রেখার ভূমিকা রয়েছে।

২। বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয়:

জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় করার জন্য প্রথমে দেশগুলোর দ্রাঘিমা জানতে হবে।

এখানে, বাংলাদেশের (ঢাকা) দ্রাঘিমা = ৯০° পূর্ব

জাপানের (টোকিও) দ্রাঘিমা = ১৩৯.৮৩৯৪৭৮° পূর্ব

কানাডার (অটোয়া) দ্রাঘিমা =  ৭৫.৬৯৫০° পশ্চিম

যুক্তরাষ্ট্রের (ওয়াশিংটন ডিসি) দ্রাঘিমা = ৭৭.০৫০৬৩৬° পশ্চিম

আমরা জানি, ১° দ্রাঘিমার পার্থক্যের জন্য সময়ের পার্থক্য = ৪ মিনিট।

আপনারা পড়ছেন: ৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর |৫ম সপ্তাহ | Class 9 assignment bangladesh and global studies

জাপানের স্থানীয় সময় নির্ণয়:

দ্রাঘিমার পার্থক্য ( ১৩৯.৮৩৯৪৭৮° – ৯০°) = ৪৯.৮৩৯৪৭৮°
সুতরাং, ৪৯.৮৩৯৪৭৮° দ্রাঘিমায় সময়ের পার্থক্য = (৪৯.৮৩৯৪৭৮° x ৪) মিনিট
= ১৯৯.৩৫৭৯১২ মিনিট বা, ৩ ঘণ্টা ৩২ মিনিট।
জাপানের (টোকিও) অবস্থান পূর্বে হওয়ার কারণে দেশটির সময় বাংলাদেশ (ঢাকা) থেকে বেশি হবে।
সুতরাং, বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপানের সময় হবে = ১০ টা + ৩ ঘণ্টা ৩২ মিনিট = দুপুর ১ টা ৩২ মিনিট।

কানাডার স্থানীয় সময় নির্ণয়:

দ্রাঘিমার পার্থক্য ( ৭৫.৬৯৫০° + ৯০°) = ১৬৫.৬৯৫°
সুতরাং, ১৬৫.৬৯৫° দ্রাঘিমায় সময়ের পার্থক্য = (১৬৫.৬৯৫° x ৪) মিনিট
= ৬৬২.৭৮ মিনিট বা, ১১ ঘণ্টা।
কানাডার (অটোয়া) অবস্থান পশ্চিমে হওয়ার কারণে দেশটির সময় বাংলাদেশ (ঢাকা) থেকে কম হবে।
সুতরাং, বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে কানাডার সময় হবে = ১০ টা – ১১ ঘণ্টা = রাত ১১ টা (আগের রাত)

নোট: ১৪ মার্চ ২০২১ থেকে কানাডার ঘড়ির কাটা ১ ঘণ্টা আগিয়ে দেওয়া হয় সেই হিসেবে বাংলাদেশের সাথে কানাডার সময়ের পার্থক্য ১০ ঘণ্টা। তাহলে বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে কানাডার সময় হবে রাত ১২ টা।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয়ঃ

দ্রাঘিমার পার্থক্য ( ৭৭.০৫০৬৩৬° + ৯০°) = ১৬৭.০৫০৬৩৬° 
সুতরাং, ১৬৭.০৫০৬৩৬° দ্রাঘিমায় সময়ের পার্থক্য = (১৬৭.০৫০৬৩৬° x ৪) মিনিট
= ৬৬৮.২০২৫৪৪ মিনিট বা, ১১ ঘণ্টা ১৩ মিনিট।
যুক্তরাষ্ট্রের (ওয়াশিংটন ডিসি)  অবস্থান পশ্চিমে হওয়ার কারণে দেশটির সময়  বাংলাদেশ (ঢাকা) থেকে কম হবে।
সুতরাং, বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের সময় হবে = ১০ টা – ১১ ঘণ্টা ১৩ মিনিট = রাত ১১ টা ১৩ মিনিট (আগের রাত)

নোট: ১৪ মার্চ ২০২১ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের ঘড়ির কাটা ১ ঘণ্টা আগিয়ে দেওয়া হয় সেই হিসেবে বাংলাদেশের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সময়ের পার্থক্য ১০ ঘণ্টা। তাহলে বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে কানাডার সময় হবে রাত ১২ টা ১৩ মিনিট। 

৩। ঋতু পরিবর্তনের চিত্র অঙ্কনঃ


(তোমারা ঋতু পরিবর্তনের চিত্র অঙ্কন করবে)।

৯ম শ্রেণি ৫ম সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এ্যাসাইনমেন্ট ২০২১

বার্ষিক গতির জন্য সূর্যরশ্মি কোথাও লম্বভাবে আবার কোথাও তীর্যকভাবে পতিত হয়। যার ফলে দিবারাত্রির হ্রাস বৃদ্ধি ঘটে। লম্ব ভাবে পতিত সূর্যরশ্মি কম বায়ুর স্তর ভেদ করে আসে তা নয়, এটি লম্বভাবে পতিত সূর্যরশ্মি অপেক্ষা অধিক স্থান ব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। এর ফলে বছরের বিভিন্ন সময়ে ভূপৃষ্ঠের সর্বত্র তাপের তারতম্য হয় এবং ঋতু পরিবর্তন ঘটে। পৃথিবীতে সময়ভেদে তাপমাত্রা পার্থক্য বা পরিবর্তনকে ঋতু পরিবর্তন বলে।

৪। বার্ষিক গতির ফলাফল ও অবস্থানের ভিত্তিতে উল্লিখিত দেশগুলির ঋতুর পার্থক্য ব্যাখ্যা:

পৃথিবী নিজ অক্ষের অবিরাম ঘুরতে ঘুরতে একটি নির্দিষ্ট উপবৃত্তাকার কক্ষপথে নির্দিষ্ট থেকে এবং নির্দিষ্ট সময়ে সূর্যের চারদিকে পরিক্রমণ করছে। পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে পৃথিবীর পরিক্রমণকে বার্ষিক গতি বলে। পৃথিবীর প্রতি সেকেন্ডে ৩০ কিলোমিটার বেগে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে। সূর্যকে পরিক্রমণ করতে পৃথিবীর এক বছর সময় লাগে। বার্ষিক গতির ফলে পৃথিবীর দিন রাত্রির হ্রাস বৃদ্ধি ও ঋতু পরিবর্তন ঘটে। 

বাংলাদেশ উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত। জুলাই মাসে সূর্যরশ্মি কর্কটক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে পড়ে। ফলে এই সময় উত্তর গোলার্ধে উত্তাপ বেশি থাকে। এ সময় উত্তর গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল। জাপান, কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্র  উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত। তাই জুলাই মাসে এইসব দেশে গ্রীষ্মকাল থাকে। এভাবে বার্ষিক গতির ফলাফল ও অবস্থানের ভিত্তিতে দেশের ঋতুর পার্থক্য হয়।

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর এখান থেকে শেষ

আপনারা যা খোঁজার কারণে এই পৃষ্ঠায় এসেছেন:

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১, ৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর 2021, ৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট এর উত্তর,

Check Also

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা অ্যাসাইনমেন্ট  ২০২১ | ১৮তম সপ্তাহ

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা অ্যাসাইনমেন্ট  ২০২১ | ১৮তম সপ্তাহ

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা অ্যাসাইনমেন্ট  ২০২১ | ১৮তম সপ্তাহ: আপনি কি নবম শ্রেণির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *