৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

৪র্থ সপ্তাহ | ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর|Biggan assignment class 7: ২০২১ সালে ৪র্থ সপ্তাহে প্রকাশিত হয়েছে ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট । সুপ্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, আমাদের ওয়েবসাইটে সবাইকে স্বাগতম। তোমরা যারা ৭ম শ্রেনীতে পড় তোমাদের সুবিধার জন্য আমরা ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট এর উত্তর বা সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছি। এই পোস্ট অনুসরণ করে তোমরা ২০২১ সালের ৭ম শ্রেণি ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান বিষয়ের উত্তর সুন্দরভাবে লিখতে পারবে।

এছাড়াও তোমরা আমাদের সাইটে ৭ম শ্রেনির সকল এ্যাসাইনমেন্ট এর প্রশ্ন তার সমাধান পাবে। পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে আপনার বন্ধু বা প্রিয়জনকে দেখার সুযোগ করে দিও।

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর

(Biggan assignment class 7)

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ

১। তােমার বাড়ীর দেওয়ালে অথবা আশে পাশের দেওয়ালে যে সাদা ও সবুজ রং কী কারনে হয় বলে তুমি মনে কর।

২। তােমার শরীরে হালকা জ্বর ও ডাইরিয়া কী কারনে হয় বলে তুমি মনে কর।

৩। স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ও নিরাপদ পানি তােমার জীবনে কতটুকু গুরুত্ব বহন করে – যৌক্তিকতা নিরুপন করে ব্যাখ্যা কর।

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর এখান থেকে শুরু



বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ১নং প্রশ্নের উত্তর:

সমাঙ্গদেহী ক্লোরোফিলবিহীন অসবুজ উদ্ভিদকে ছত্রাক বলে। ক্লোরোফিলের অভাবে এরা নিজের খাদ্য নিজে তৈরি করতে পারে না তাই এরা পরোভোজী বা মৃতোভোজী হয়ে থাকে। বাসি ও পচা খাদ্যদ্রব্য, ফলমূল, শাকসবজি, ভেজা রুটি বা চামড়া, গোবর, মাটি, উদ্ভিদ ও প্রাণীর দেহ, পচনশীল জীবদেহে বাস করে। তবে স্থলজ ছত্রাকগুলো সাধারণত জৈব পদার্থ বিশেষ করে হিউমাস সমৃদ্ধ মাটিতে ভাল জন্মে।

সমাঙ্গবর্গীয় ক্লোরোফিলযুক্ত, সলোকসংশ্লেষনকারী, স্বভোজী ও অপুষ্পক উদ্ভিদকে শৈবাল বলা হয়। এরা আলোকিত স্থান পছন্দ করে। এরা মাটি, পানি ও অন্য গাছের উপর জন্মায়। সবুজ ছাড়াও লাল, বাদামি ইত্যাদি রঙের হয়ে থাকে। সুতরাং বলা যায় আমার বাড়ির দেওয়ালে অথবা আশে পাশের দেওয়ালে যে সাদা ও সবুজ রং তা ছত্রাক ও শৈবালের কারনে হয়ে থাকে।

বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২নং প্রশ্নের উত্তর:

আমার শরীরে হালকা জ্বর ও ডায়রিয়া সাধারণত অণুজীবের কারণে হয়ে থাকে। যে সমস্ত ক্ষুদ্র জীব অনুবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্য ছাড়া খালি চোখে দেখা যায় না তাদেরকে অনুজীব বলে। অনুজীবগুলোর মধ্যে কোনো কোনোটি রোগ সৃষ্টি করে আবার কোনো কোনটি পশু বা পাখির দেহে অবস্থান করলেও কোনো রোগ সৃষ্টি করে না। যেসব অনুজীব দেহে রোগ সৃষ্টি করে তাদেরকে রোগজীবাণু বলে । এগুলোর মধ্যে ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, মাইকোপ্রাজমা, ছত্রাক, প্রোটোজোয়া ইত্যাদি গুরুতৃপূর্ণ ।

ব্যাকটেরিয়ার জীবাণু দেহাভ্যন্তরে বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় প্রবেশ করতে পারে। অপরিষ্কার হাত জীবাণুর জন্য একটি সুবিধাজনক মাধ্যম। যার মাধ্যমে সহজেই এরা মুখগহব্বরে প্রবেশ, করতে পারে। আমরা যে জামা কাপড় ব্যবহার করি, তাতে লেগে ব্যাকটেরিয়ার স্পোর স্থানান্তরিত হতে পারে। বাতাসে ধুলাবালি উড়ে বেড়ায় তার সাথে অতি সহজেই’ ব্যাকটেরিয়া বা তার স্পোর এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সহজেই যেতে পারে। হাত মেলানোর মাধ্যমেও ব্যাকটেরিয়ার একজনের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে সহজেই স্থানান্তরিত হতে পারে। পচা ও বাসি খাবারের মাধ্যমে জীবাণু সহজেই ছড়াতে পারে। ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ও এন্টামিবা ইত্যাদি অণুজীব মানুষের শরীরে বিভিন্ন রোগ সৃষ্টির জন্য দায়ী।

বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ৩নং প্রশ্নের উত্তর:

স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার করা ও নিরাপদ পানি পান করা শুধু আমার জন্যই নয় সুস্থ্য থাকার জন্য আমাদের সবার জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

কথায় আছে, পানির অপর নাম জীবন। পানি ছাড়া জীবনের অস্তিত্ব কখনোই কল্পনা করা যায় না। পানি নেই বলে অন্য কোন গ্রহে জীবনের অস্তিত্ব এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি। শুধু জীবন কেন, মানব সভ্যতাও গড়ে উঠেছে এই পানিকে ঘিরেই। আর তাই খাবার-পানি নিরাপদ হওয়া খুবই জরুরী। কলেরা, টাইফয়েড ইত্যাদি ব্যাকটেরিয়া সৃষ্ট রোগ থেকে বাঁচতে অবশ্যই নিরাপদ পানি ব্যবহার করতে হবে। পান করা, গোসল ও কাপড় কাচা, বাসন ধোওয়া ইত্যাদির জন্য নিরাপদ পানি ব্যবহার করা উচিত। ও আর্সেনিক মুক্ত টিউবওয়েলের পানি নিরাপদ । পুকুর ও নদীর পানি ব্যবহারের পূর্বে ২০ মিনিট ফুটিতে নিতে হব । অন্যথায়, আর্সেনিকে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু পরযন্ত হতে পারে।

যত্রতত্র মলমূত্র ত্যাগের কারণেও স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা সৃষ্টি হয়। এসব মলমৃত্রে যে রোগজীবাণু থাকে তা ভক্ষণকারী অন্য জীব এগুলোকে ছড়িয়ে দেয়। এছাড়া বৃষ্টি, বন্যা বা জোয়ারের পানির মাধ্যমে এগুলো দুর-দুরান্তে ছড়িয়ে পড়ে। আমাদের দেশের অনেক স্থানে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা নেই এবং এসব অঞ্চলের মানুষ মাঠ বা কঁচা পায়খানা ব্যবহার করে। এন্টামিবায় আক্রান্ত ব্যক্তির মল মাঠের মাটিতে মিশে যায়। এ মাটিতে হাত লাগলে বা এ মাটিতে যে সবজি চাষ করা হয় তাতে এসব জীবাণু লেগে থাকে । সবজির ভিতরেও এরা প্রবেশ করে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় রান্নার পরেও এ সকল জীবাণু বেঁচে থাকে। আর এভাবেই সুস্থ্য মানুষও এন্টামিবা সংক্রমিত হয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। তােই আমাদের সবারই স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার এবং নিরাপদ পানি পান করা উচিত।

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর এখান থেকে শেষ



৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

সকল এ্যাসাইনমেন্ট এর আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথেই থাকুন

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর | Biggan assignment class 7

আপনি যা খুজতে গিয়ে এই পৃষ্ঠায় এসেছেন:

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট, ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর, ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২১, ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ৪র্থ সপ্তাহ, ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট, ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্টের সমাধান, ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট উওর।

About Assignment Desk

Check Also

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা অ্যাসাইনমেন্ট  ২০২১ | ১৮তম সপ্তাহ

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা অ্যাসাইনমেন্ট  ২০২১ | ১৮তম সপ্তাহ

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা অ্যাসাইনমেন্ট  ২০২১ | ১৮তম সপ্তাহ: আপনি কি নবম শ্রেণির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *